হিমশিম খাচ্ছে স্বাস্থ্যকর্মীরা, জানালেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী

1 week ago 3
স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, ‘দেশে প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ আশঙ্কাজনকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। এতে হাসপাতালগুলোতে রোগীর চাপ এতটাই বেড়েছে যে সেবা দিতে আমাদের স্বাস্থ্যকর্মীদের হিমশিম খেতে হচ্ছে। অনেকে হাসপাতালে গিয়ে চিকিৎসা পাচ্ছেনও না।’ গতকাল বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) ভার্চুয়াল মিটিংয়ে যুক্ত হয়ে তিনি এ কথা বলেন। জাহিদ মালেক বলেন, ‘আমরা প্রায় সব হাসপাতালে বেড বাড়ানোর চেষ্টা করছি। সাধারণ রোগী কমিয়ে করোনা রোগীদের জন্য বাড়তি বেডের ব্যবস্থা করার চেষ্টা অব্যাহত আছে। এতে সাধারণ রোগীদেরও কষ্ট হবে।’ তিনি বলেন, ‘সাধারণ রোগীদের চিকিৎসা আর করোনা রোগী বৃদ্ধি-দুটো মিলে স্বাস্থ্যসেবার ওপর বিরাট চাপ। আমাদের ডাক্তার-নার্সরা কাজ করতে করতে পরিশ্রান্ত হয়ে পড়েছেন। তাদের আমরা ছুটি দিতে পারছি না। এখন যদি পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে না পারি, তবে হাসপাতালে রোগীদের জায়গা দেওয়া সম্ভব হবে না। সবাইকে একসঙ্গে সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে এটি মোকাবিলা করতে হবে। করোনা রোধ করা ছাড়া আর কোনো বিকল্প নেই। সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টায় করোনা ভাইরাসের কারণে সৃষ্ট মহামারীকে মোকাবিলা করতে হবে। প্রতিরোধের ওপর সর্বাধিক গুরুত্ব দিতে হবে। সে জন্য মাস্ক পরা, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা, হাত ধোয়াসহ অবশ্যই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।’ বিএসএমএমইউর উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘দেশে মানুষের মাঝে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ এবং মৃত্যু, পূর্বের তুলনায় বৃদ্ধি পেয়েছে। এ অবস্থায় জনগণকে অবশ্যই আরও সচেতন হতে হবে। বর্তমান পরিস্থিতিতে রোগীদের সেবাকার্যক্রম বৃদ্ধির লক্ষ্যে বিএসএমএমইউর বর্তমান প্রশাসন কার্যকরী উদ্যোগ নিয়েছে। করোনায় আক্রান্ত রোগীদের জন্য সাধারণ ১০০টি শয্যা, ২০টি কেবিন এবং ১০টি আইসিইউ শয্যা নতুন করে সংযোজন করেছে।’ #
Read Entire Article